expr:class='"loading" + data:blog.mobileClass'>

Tuesday, July 21, 2020

রাজ দুলালী মাখলো ধুলী (জান্নাতি দুনিয়ার অসম প্রেমের উপন্যাস) #শায়েখ আব্দুল্লাহ আল-মুনীর#





পিতার কথা শুনে খুশির পুলকে মনটা ভরে যায় শাহাজাদীর| মধুকে দেওয়াটা ওয়াদাটা তবে সহজেই পুরা করতে পারলো সে| ততক্ষণে সৈন্যরা মধুকে শাহাজাদার পোশাকে সাজিয়ে দরবারে হাজির করলো| তার দিকে দৃষ্টি দিয়েই মাথা নত হয়ে গেলো শাহাজাদীর| পোশাক আশাক বা ধন সম্পদ ছাড়াই কেবল ব্যক্ত্বিত্ব আর মহত্বের গুণের তার কাছে হার মেনেছে সে| রাখালের পোশাকেই মধুকে আকাশের চাঁদই মনে হয়েছে  তার কাছে| এখন তার শূণ্যস্থানগুলো পূরণ হয়ে এতটাই পরিপূর্ণ মানুষ মনে হচ্ছে যে নিজেকেই তার যোগ্য মনে হচ্ছে না কোনো ক্রমে| মনে হচ্ছে দয়া সে তাকে ভালবাসার মানুষ হিসেবে গ্রহণ করলেই সে ধন্য হয়|

যথা সময়ে ঢাকঢোল পিটিয়েই শুভ বিবাহ সম্পন্ন হয় দুজনের| প্রাসাদেই হয় বাসরের রাত| একে একে ফলে যায় জ্যোস্নবরণ অনুষ্ঠানের সেই গানটির সবগুলো লাইন| সম্পূর্ণ হয় অসমাপ্ত লাইনগুলোও| যেগুলো সেদিন শোনা হয়নি| এভাবে শাহী প্রাসাদের মেহমান হয়েই জীব পার করত লাগলো তারা|




No comments:

Post a Comment

দ্বীনের দাওয়াত হলো নিজে দ্বীনের উপর টিকে থাকা।